সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:২১ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ
       
শিরোনাম :
সোনারগাঁওয়ে মহিলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত এক দম্পত্তির এক সঙ্গে তিন পুত্র সন্তান জন্ম সোনারগাঁওয়ে দলিল লিখক হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়নের লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা  ও শিক্ষা পদক প্রদান সোনারগাঁওয়ে শিক্ষার মান উন্নয়ন বিষয়ক দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত জামপুরে প্রয়াত আ.লীগ নেতা আব্দুল হাই ভূঁইয়ার মৃত্যু বার্ষিকীতে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল মরহুম আব্দুল হাই ভূঁইয়ার ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ  বারদীতে টেক্সটাইল মিলে আগুন, ৩০ লাখ টাকার কাপড় সুতা ভূস্মিভূত সোনারগাঁওয়ে এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৩৭ জন,  ৩ স্কুলে শতভাগ  মাছের খাদ্যের নামে মাদক পাচারকালে ৪৩ কেজি গাঁজাসহ ১ যুবক গ্রেফতার

বারদীতে ১৭ দিন জেল খাটায় সাক্ষীকে আসামীর ১৭ জুতার বারি

নিজস্ব প্রতিবেদক, সোনারগাঁও নিউজ :
নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে ১৭ দিন জেল হাজতে থাকায় জামিনে বের হয়ে ৮৫ বছর বয়সী বৃদ্ধ সাক্ষী হাজী তাহের আলীকে ১৭টি জুতার বারি দিয়ে লাঞ্ছিত করেছে আসামীরা।

উপজেলার বারদি ইউনিয়নের চেঙ্গাকান্দি গ্রামে বৃহস্পতিবার সকালে ওই এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় লাঞ্ছিত মামলার সাক্ষী হাজী তাহের আলীর ছেলে যুবলীগ নেতা ইকবাল হোসেন বাদি হয়ে শুক্রবার সকালে সোনারগাঁও থানায় তিনজনকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার বারদি ইউনিয়নের চেঙ্গাকান্দি গ্রামে ২০১৪ সালে সাবেক মেম্বার মূছা মিয়ার সঙ্গে একই এলাকার কামাল মিয়ার জমি নিয়ে বিরোধে সংর্ঘের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় সোনারগাঁও থানায় মূসা মিয়াসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলায় মূসা মিয়ার বিপক্ষে হাজী তাহের আলী আদালতে সাক্ষী প্রদান করেন। ওই সাক্ষীর কারনে আদালত তাদের ৭ বছরের সাজা প্রদান করেন। ওই মামলায় মূসা ও তার ভাই মোস্তফা মিয়াসহ অন্যান্য আসামিরা ওই রায়ের বিপক্ষে আপিল করেন। ১৭ দিন কারা ভোগের পর গত সপ্তাহে মূসা মিয়া ও মোস্তফা মিয়া জামিনে বের হয়ে আসে। গত বৃহস্পতিবার সকালে এ মামলার সাক্ষী হাজী তাহের আলী চেঙ্গাকান্দি এলাকার বাড়ির সামনে চা পান করতে দোকানে যান। আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা বারদি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য মূসা মিয়া তার ভাই মোস্তফা মিয়া ও মো. আনাজ মিয়া চায়ের দোকানে এসে তার সঙ্গে তর্কবিতর্ক করে। এক পর্যায়ে আসামী মোস্তফা মিয়া ১৭ দিন কারাভোগ করায় একে একে ১৭টি জুতার বারি দিয়ে লাঞ্ছিত করে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

লাঞ্ছিত হাজী তাহের আলীর ছেলে বারদি ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইকবাল হোসেন বলেন, তার বাবার বয়স ৮৫ বছর। ২০১৪ সালের একটি মামলায় তার বাবা আদালতে সত্য সাক্ষী দেয়। ওই সাক্ষীতেই তাদেরও আদালত বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করে। এ মামলায় দু’জন ১৭ দিন কারাভোগ করেছেন। আপিল করে তারা জামিন পায়। জামিনে বের হয়ে ১৭ দিন কারাভোগ করায় তার বাবাকে মূসা মিয়ার নির্দেশে ১৭টি জুতার বারি দিয়ে লাঞ্ছিত করে। এর আগেও তার বাবাকে তারা পিটিয়ে বাম পা ভেঙে দিয়েছে। ৪ মাস চিকিংসাধীন ছিলেন তিনি। এখনো পায়ে রড ভর্তি রয়েছে।

অভিযুক্ত মূসা মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তাহের আলীর মিথ্যা স্বাক্ষীর কারনে এ মামলায় আদালত আমাদের সাজা প্রদান করে। ক্ষিপ্ত হয়ে মোস্তফা তার সাথে খারাপ ব্যবহার করে। তবে ১৭টি নয় মনে হয় দু’চারটি বারি দিয়েছে।

সোনারগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান সোনারগাঁও নিউজকে জানান, এ বয়সের মানুষকে এভাবে লাঞ্ছিত করা খুবই দুঃখজনক। অভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

 

পোস্টটি শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © Sonargaonnews 2022
Design & Developed BY N Host BD